ঢাকা শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

বিভাগসমূহ
পঞ্চগড়ের পুলিশ সুপারের প্রেস ব্রিফিং

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করা সেই মোজাম্মেল আটক

পঞ্চগড় প্রতিনিধি || ৭:৩৮ অপরাহ্ণ ॥ এপ্রিল ৭, ২০২৩

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের স্বাক্ষর ও সীল জাল করে প্রতারণার অভিযোগে মোজাম্মেল হক (৪৮) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে পঞ্চগড় থানা পুলিশ।
গত বৃহস্পতিবার দুপুরে পঞ্চগড় পৌরসভার জালাসী এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার বাড়ি পঞ্চগড় সদর উপজেলার হাফিজাবাদ ইউনিয়নের পানিমাছ পুকুরী এলাকায়। প্রতারক মোজাম্মেল পানিমাছ পুকুরী বাজারের একটি সেলুনে নাপিতের কাজ করে। বৃহস্পতিবার রাতে পঞ্চগড় পুলিশ সুপার এসএম সিরাজুল হুদা প্রেস ব্রিফিং এ তথ্য জানান। এ সময় পঞ্চগড়ের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সদর সার্কেল রাকিবুল হাসান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কনক কুমার উপস্থিত ছিলেন। গতকাল শুক্রবার প্রতারক মোজাম্মেলকে আদালতে হাজির করে তিন দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা। শুনানী শেষে আদালত তার এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পুলিশ সুপার জানান, জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধকে কেন্দ্র করে মোজাম্মেল হক প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কার্যালয়ে বাড়িঘরে অগ্নিসংযোগ করে, হাঁস-মুরগী ও ছাগল পোড়ানো জন্য বিচারপ্রার্থী হিসেবে আসামীদের বিরুদ্ধে শাস্তির জন্য আবেদন করেন। ওই আবেদনগুলোর স্ব-পক্ষে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালের স্বাক্ষর জাল করে পঞ্চগড় পুলিশ সুপার এবং জেলা প্রশাসককে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়। পরে দরখাস্তগুলোতে সীল ও স্বাক্ষর দেখে সন্দেহ হলে পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক মো. জহুরুল ইসলাম প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে খোঁজ নেন। তিনি খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন মোজাম্মেল হকের দরখাস্তের জন্য কোন কোন নির্দেশনা দেয়া হয়নি। বরং মুখ্য সচিবের দপ্তর এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দপ্তর থেকে নিশ্চিত করা হয় সীলমোহর এবং সই জাল করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার বলেন, এরই মধ্যে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মোজাম্মেল হক দরখাস্তগুলো তিনি নিজে আবেদন করেছেন বলে স্বীকার করলেও আবেদনপত্র গুলোতে নিজে স্বাক্ষর না করে তার পরিচিত একজন স্বাক্ষর করেছেন বলে জানান। আমি মনে করি এখানে একটি চক্র কাজ করেছে। আমাদের ধারণা সরকারের মন্ত্রী এবং উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের সুপারিশকে প্রতারণামূলকভাবে জাল স্বাক্ষর ও সীলমোহর ব্যবহার করে এরকম আরও ঘটনা করতে পারে। এজন্য পূরো চক্রটিকে সনাক্ত করার চেস্টা করছি। আশা করছি পুরো চক্রটিকে আমরা সনাক্ত করতে পারবো। #

Print Friendly, PDF & Email