ঢাকা শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ৭ জিলহজ, ১৪৪৫ হিজরি

বিভাগসমূহ

চাকুরী শেষে আওয়ামী লীগের রাজনীতি করতে চাই- সচিব খাজা মিয়া

রিন্টু মুন্সী , নড়াইল প্রতিনিধিঃ || ১১:৩২ অপরাহ্ণ ॥ মার্চ ১৮, ২০২৩

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব খাজা মিয়া বলেছেন, “আমার খুব ভালো লেগেছে যে এই অনুষ্ঠানে মুক্তিযোদ্ধারা অংশগ্রহণ করেছে। শুনেছি অনেকে অনেক বাঁধা দিয়েছিল। এই বাঁধা যারা দিয়েছে তারা হয়তো ভুল বুঝে দিয়েছে। আমি কোন রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে আপনাদের সামনে আসিনি। কারণ আপনারা অনেকেই জানেন সরকারি চাকুরী করে সরাসরি রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করতে গেলে অবসরের পর তিন বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়। আমার চাকুরী আছে এখনো দেড় বছর। সুতারাং হঠাৎ করে যে আমি রাজনীতি করতে চলে এসেছি, তা কিন্তু নয়। তাই আমাকে কারো রাজনৈতিক প্রতিপক্ষ মনে করার কোন প্রয়োজন নেই। তবে এইটুককু বলতে পারি চাকুরী শেষে আমি অন্য কিছু করবোনা। আমি রাজনীতিই করবো। আপনাদের সাথেই থাকবো।”
শনিবার (১৮মার্চ) বিকালে নড়াইল সদর উপজেলার গোবরা পার্ব্বতী বিদ্যাপীঠে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রকল্পের আওতায় নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধকরণ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ও মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।
তিনি আরো বলেন, “চাকুরি শেষে অনেকে ব্যবসা করে। অনেকে অন্য জায়গায় চাকুরি খোঁজে। বিদেশে চলে যায়। আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে পরিষ্কার বলেছি চাকুরি শেষে আমাকে একটু অনুমতি দিবেন, আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে কাজ করতে চাই। যেখানে কাজ করার সুযোগ দিবেন সেখানে কাজ করব। ” এ সময় নড়াইলকে নিয়ে তার বিভিন্ন স্বপ্নের কথা বর্ণনা করেন সচিব খাজা মিয়া। সাধারণ মানুষের বিভিন্ন দাবি পূরণের আশ^াস দেন তিনি।
নড়াইল সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নিজামুদ্দিন খান নিলু। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন নড়াইল পৌরসভার মেয়র আঞ্জুমান আরা, কালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কালিয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কৃষ্ণপদ ঘোষ এবং কালিয়া পৌরসভার মেয়র ওয়াহিদুজ্জামান হিরা। বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথি হিসেব বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাডভোকেট সৈয়দ মোহাম্মদ আলী ,সাবেক নড়াইল জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা এ্যাডভোকেট সোহরাব হোসেন বিশ^াস,জেলা জজ কোর্ট’র পিপি এ্যাডভোকেট এমদাদুল ইসলাম,নড়াইল সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও বীরমুক্তিযোদ্ধা শরীফ হুমায়ুন কবীর,সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা এ্যাডভোকেট এসএ মতিন। কেন্দ্রিয় পর্যায় থেকে আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগ নেতাকাজী সরোয়ার হোসেন,বাংরাদেশ আওয়ামী যুবলীগের কেন্দ্রিয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য চৈতী রানী বিশ্বাস। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য দেন বীরমুক্তিযোদ্ধা সাইফুর রহমান হিলু, সিঙ্গাশোলপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান উজ্জ্বল শেখ,গোবরা পার্ব্বতী বিদ্যাপীঠ এর প্রধান শিক্ষক আব্দুর রশিদ প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email